অ্যান্ড্রয়েড ফোন দ্রুত চার্জ করার ৮ টি উপায় গুলি।

অ্যান্ড্রয়েড ফোন দ্রুত চার্জ করার ৮ টি উপায়।

এটি হয়তো কেউ আপনাকে বলবে না।কারন এই বিষয় গুলি আর কোথাও বিস্তারিত লেখা নেই। 

কিন্তু বর্তমানে যুগের সাথে চলতে গেলে ফোনের ব্যাটারী কে খুব তারাতারি চার্জ করা আমাদের জরুরী হয়ে গেছে।

তো চলুন আমরা আজকের বিস্তারিত জেনে নেই যে কিভাবে অ্যান্ড্রয়েড ফোন দ্রুত চার্জ করার ৮ টি উপায়ে করা যায়।


১.থার্ডপার্টি ফাস্ট চার্জিং অ্যাপস ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকা।


বর্তমানে এখন নানা ধরনের ফাস্ট চার্জিং অ্যাপ স্টোরে বা বিভিন্ন সাইটে পাওয়া যায়। 
এই ধরনের ফাস্ট চার্জিং অ্যাপস গুলি আপনার ব্যাকগ্রাউন্ডের সকল ধরনের সক্রিয় অ্যাপগুলোকে নিস্ক্রিয় করে দেয় এর ফলে হয়তো সামান্য  উপকার হচ্ছে।

কিন্তু বাস্তবে এই ধরনের অ্যাপ গুলি চালাতে প্রয়োজন হয় ব্যাটারির অধিক চার্জের ক্ষমতা রাখার।

যার ফলে এগুলো দিয়ে যদিও তেমন উপকক্র হয়ও না ,যা হয় ক্ষনিকের জন্য।

এই ধরনের প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ফোনের ব্যাটারি  চার্জ করা কোন বুদ্ধিমান ব্যক্তির কাজ হতে পারে না
তাই চেষ্টা করবেন এই ধরনের ফাস্ট চার্জিং অ্যাপসগুলো থেকে এড়িয়ে চলতে৷


২. থার্ডপার্টি ব্যাটারি অ্যাপস ব্যবহার বন্ধ করুন.


আজকাল ব্যাটারি চার্জিং এর জন্য ফাষ্ট চার্জিং এর অ্যাপস ব্যবহার করার পাশাপাশি আবার দীর্ঘক্ষণ যাতে ফোনে চার্জ ধরে রাখতে পারে সে জন্য ব্যাটারি সেভিং অ্যাপস ব্যবহার করে থাকেন।




যেগুলো আপনার শখের ফোনের ব্যাটারি কে খুব দ্রুত চার্জ করতে এবং এটির চার্জকে ধরে রাখতে হলে প্রথমেই বলে রাখি আপনাকে এসব ধরনের অ্যাপস‌ ব্যবহার করা থেকে এড়িয়ে চলতে হবে।

কারন এসব অ্যাপস আপনার ব্যাকগ্রাউন্ডে সক্রিয় ভাবে চলতে থাকে যার ফলে আপনার ব্যাটারির চার্জ খুব দ্রুত হয় না৷ 
যা বলতে আপনার জন্য হিতে বিপরীত ওয়ে মত অবস্থা।

আর ফোন চালু অবস্থায় চার্জ দেয়ার ক্ষেত্রে আপনার ব্লুটুথ, জিপিএস, ওয়াই-ফাই ইত্যাদি যেগুলো আছে কাজে লাগছে না সেগুলি কে বন্ধ করে দিন।

৩.ফ্লাইটমোড চালু করে দিন.


আপনার ফোনের যদি  ফ্লাইট মোডে থাকে তাহলে বলা যায় মোটামুটি সকল ধরনের ব্যাটারিকিলার অ্যাপস এর মধ্যে প্রায়ই বন্ধ থাকে,
এর ফলে এক্সট্রা ফোনের চার্জ খরচ হয় না।

এছাড়া মোবাইল ফোনের ফ্লাইট্মুড চালু করলে এর কল, এসএমএস, নেটওয়ার্ক, জিপিএস ইত্যাদি যেহেতু বন্ধ থাকে৷
ফলে আপনার ফোন চার্জ দেওয়ার সময় এটি তেমন হিট হয় না।
এটি আপনার জন্য বেশ ফলপ্রসূ, আপনি চাইলে নিজেই এটি পরখ করে দেখতে পারেন।


৪.বন্ধ করে ফোন চার্জ দিন.


মোবাইল ফোনকে দ্রুত চার্জ করার জন্য সব থেকে বেশি কার্যকরী উপায় হলো আপনার ফোনকে বন্ধ করে চার্জ করা।

যদি ফোন অফ করে চার্জ করা হয় তাহলে ফোনের যাবতীয় সকল প্রকারের কার্যবলী বন্ধ থাকে, ফলে আপনার ফোন খুব তাড়াতাড়ি চার্জ হয়ে যাবে।
এবং আমরা কম বেশি সবাই এই বিষয় টি খুব ভালো ভাবেই জানি।

আর ফ্লাইটমোড অন করে চার্জিং করার থেকেও বেশি কার্যকরি বলা যায়। তবে আপনার জররু প্রয়োজনের জন্য এস এম এস কিংবা কল আসতে পারে তারা এটিকে এড়িয়ে চলুন।
এটাই আপনার জন্য উত্তম বলা যায়।


৫. ফোনের ব্যাটারি খুলে চার্জ দিতে পারেন.


ফোনে ব্যাটারি খুলে অটো চার্জার দিয়ে চার্জিং করুন।ন
এটা নরমাল ভাবে চার্জ হবার থেকে অনেক বেশি দ্রুত চার্জ হয় এবং এটা  প্রমাণিত সত্য। 
আপনি চাইলে নিজেই এটি একবার পরীক্ষা করে দেখতে পারেন।

কারন এর মধ্যে কয়েকদিন একটি জরিপ থেকে জানা গেছে যে, ফোনে ব্যাটারি থাকা অবস্থায় এটিকে চার্জ দিলে মোটামোটি যেটুকু সময় লাগে,
তার চেয়ে কমপক্ষে ৩ গুণ কম সময় লাগে যদি আপনি ফোন এর ব্যটারী খুলে অটো চার্জার দিয়ে চার্জ করেন।


৬.চার্জিং অবস্থায় ফোনকে ব্যবহার করবেন না.


আমাদের মোবাইল গুলিতে সাধারণত প্রায় ৩৩° থেকে ১১৪° ফারেনহাইট পর্যন্ত তাপমাত্রায় এটি চার্জ হয়।

সুতরাং, ফোন চার্জ করার সময়ে ভুলেও ব্যবহার করবেন না।

আপনি যদি আপনার ফোনকে চার্জ দিয় ব্যবহার করেন তাহলে দেখা যাবে চার্জ যেমন অনেক দেরীতে হচ্ছে তেমনি এর তাপমাত্রাও বেড়ে যাচ্ছে।
এর কারনেই বর্তমানে ফোন বিষ্ফোরনের মত ঘটনা বেড়ে গেছে।

তাই ফোনকে চার্জ করার সময়ে অবশ্যই ফোন চার্জে দিয়ে কথা বলা কিংবা নেট ব্রাউজিং বা গেমিং সর্বোপরি সব ধরনের অ্যাপস এর ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।


৭.ফোনের সাথের অরিজিনাল চার্জার ব্যবহার করা.


যেকোনো ফোনের দ্রুত চার্জ করার জন্য অবশ্যই আপনি লক্ষ্য রাখবেন যে মোবাইল ফোনটি যেন সবসময় ফোনের নিজস্ব চার্জার দিয়েই চার্জ করা হয়ে থাকে।

কারন, আপনার মনে রাখতে হবে যে, ফোনের সঙ্গে পাওয়া চার্জার টি শুধু উক্ত মোবাইলটির জন্যই বানানো হয়েছে, এবং এর ফলে আপনার অই ফোন টি যত টুকু চার্জ নিতে পারবে সেটুকুই নিতে পারবে।
 
এতে আপান্র ফোনের ব্যাটারী খুব ভালো ভাবে চার্জ এবং তারাতারি হবে ও ব্যাটারী এর আয়ু অনেক বেশি থাকবে এবং অনেক দিন ধরে ব্যবহার করার ক্ষমতা থাকবে।

এছাড়া আপনি হয়তো লক্ষ্য করে থাকবেন যে, ভিন্ন যেকোন চার্জার দিয়ে ব্যাটারী চার্জিং করলে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ফোন টি ঠিক মত কাজ করে না, হ্যাং করে। 
ডিস্প্লের টাচ কাজ করে করে আবার অনেক সময়ে ফোনে বার বার ওয়ার্নিং করতেই থাকে।


৮. ওয়াল সকেট প্লাগইন ব্যবহার করতে পারেন.


ফোন দ্রুত চার্জ করতে চাইলে অবশ্যই আপনি আপনার চার্জার এর ওয়াল আউটলেটে লাগাতে পারেন৷

এর ফলে আপনি বেশি বৈদ্যুতিক প্রবাহ পাবেন এতে আপনার ফোনের চার্জার খুব ভালো ভাবে চার্জ বের করে আপনার ফোনে ইনপুট করতে পারবে।

আপনারা অনেকেই আছেন পাওয়ারব্যাঙ্ক ব্যবহার করে চার্জ করেন।কিন্তু এটি চার্জ করতে গেলে দেখা যায় আপনি অই সর্বোচ্চ গতি পাবেন না।

তাই এটি খুব বিশেষ অবস্থায় না পরবে ব্যবহার না করাই আপনার জন্য ভালো হবে বলে মনে করি।

এছাড়া আপনি ল্যাপটপ কিংবা ব্যবহৃত চার্জার লাইট গুলি থেকে ফোন কে চার্জ করা থেকে বিরত থাকুন। এগুলি ব্যবহারে আপনার ফোনের ব্যাটারী যত তারাতারি চার্জ হবে ততটাই তারাতারি হ্রাস পাবে। 
তাই এর ব্যাকাপ বেশি সময়ে পাবেন না আপনি।

আশা করি আপনি উপরের টিপসগুলো অনুসরণ  করে খুব ভালো ভাবে “ফার্স্ট চার্জিং” প্রযুক্তির মতো আপনিও আপনার মোবাইল ফোনের ব্যাটারী কে চার্জ করতে পারবেন।
তো বন্ধুরা এই ছিলো আজকের শেয়ার করা মূল আর্টিকেল।আশা করছি পোষ্ট টি থেকে আপনি ভালো কিছু জানতে পেরেছেন। তাই যদি ভালো লাগে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন।
আর যেকোন মন্তব্য জানাতে নিচের কম্মেন্ট বক্সে জানাতে ভুলবেন না।

Leave a Comment