দাঁত ভালো রাখার সহজ টিপস দেখে নিন

by Admin
আমরা দাঁত থাকতেও কখনো দাঁতের সঠিক মূল্যায়ন করি না এটা আমাদের বদ-অভ্যাসে পরিনত হয়েছে বলা যেতে পারে। 

কেবল আমাদের অবহেলার দরুন দাঁতের ক্ষয়,ক্যাভিটি ,হলদে ভাব ভাব দাঁতে হবার পরই আমাদের জ্ঞান বা হুশ আসে,তবে ততক্ষনে অনেক দেরী হয়ে যায়।

আর শত কষ্ট ও চেষ্টা করেও সেখান থেকে প্রথম অবস্থার দাঁতের ঝলক ফিরিয়ে আনতে পারি না।

তাই সময় থাকতে নিজের দাঁতের দিকে নজর দেয়া উচিত,এবং সঠিক ভাবে পরিচর্যাও করা উচিৎ আমাদের।
তাই নিজের হাসি কে বাচিয়ে রাখতে হলে দাঁত কে তার সৌন্ধর্য বাড়িয়ে দিতে দাঁত কে ঝলমলে ও সাদা করে রাখুন,কারন এতে অন্তত আফসোস করতে হবে না।

তাই আজকের এই নিবন্ধিত ব্লগে আপনাদের কিছু সহজ টিপস বলে দিবো যেভাবে আপনি চাইলে আপনার দাঁত কে সুস্থ ও স্বাভাবিক রাখতে পারেন।

দাঁত ভালো রাখার সহজ টিপস দেখে নিন

দাঁত ভালো রাখার সহজ টিপসঃ

১। একটানা একই ধরনের টুথব্রাশ এবং টুথ পেষ্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। 


আপনি প্রটি মাস অন্তর আপনার টুথব্রাশ কে পরিবর্তন করবেন,বহুকাল সময় ধরে একই টুথব্রাশ ব্যবহার করলে এটি এক সময় হাল্কা হাল্কা জার্মস গুলি জমে টুথব্রাশের স্ব্যাস্থ-সম্মত ভাব নষ্ট করে আমাদের মুখে ব্যাকটেরিয়া বাড়িয়ে দেয়,আর দাঁতের ফাঁক ফোকড় গুলিও খুব সুন্দর ভাবে পরিষ্কার করতে পারে না,তাই টুথব্রাশ পরিবর্তন করুন এবং আপনার টুথপেষ্টও এক ধরনেরতাই ব্যবহার করবেন না কারন বিভিন্ন কোম্পানীর টুথপেষ্টে বিভিন্ন রকমের প্রয়োজনীয় উপাদান থাকে,তাই এক ধরনের টুথব্রাশ বা টুথপেষ্ট ব্যবহার না করে পরিবর্তন আনুন।

২। প্রতি সপ্তাহে অন্তত এক বার করে আপনার দাঁত বেকিং সোডা টুথপেষ্টের মত ব্রাশে মাখিয়ে ব্যবহার করুন এতে আপনার দাঁত ঝলমলে ও সাদা হয়ে যায়বে।

তবে বেকিং সোডা গিলে ফেলা থেকে বিরত থাকবেন।

৩। টুথপেষ্টের পরিপূরক বিকল্প হিসাবে আপনি লবন বা নুন ব্যবহার করতে পারেন।

কারন এটিও দাঁতকে পরিষ্কারক হিসাবেই কাজ করে থাকে।তাই ব্রাশে পরিমিত লব নিয়ে সকালে ব্রাশ করতে পারেন,তবে ব্রাশ করার পর একে মুখ থেকে ঝেড়ে ফেলবেন। 

তবে যাদের উচ্চরক্তচাপ আছে তারা লবন দিয়ে ব্রাশ করতে যাবেন না এবং না করাই ভালো।

৪। প্রতিদিন সকালে উঠে দাঁত ব্রাশ করার আগে অ্যাপেল সিডার ভিনেগারমুখে নিয়ে সুন্দর করে কুল্কুচি করবেন এতে আপনার ঝকঝকে হবে।

সেই সাথে দাঁতের ফাঁকে এবং মাড়িতে জমে থাকা ব্যাক্টেরিয়া দূর হবে।

কারন ভিনেগার আমাদের দাঁতের লালচে ভাব দূর করে এবং সুন্দর সাদা করতে সাহায্য করে।

৫। অ্যাপেল কে বলা হয়ে থাকে এটি হচ্ছে প্রাকৃতিক টুথব্রাশ।

তাই খাওয়ার পরে যদি আপনার ব্রাশ করার সুযোগ একেবাড়েই না থাকে তাহলে একটি অ্যাপেল খেয়ে নিন এক্ষেত্রে একটি অ্যাপেল অনেক বেশি কাজে দিবে।

তাছাড়া গাজর এবং পপকর্নো খেতে পারেন,এগুলো ব্রাশের মতোই কাজে দেয়।

৬। আমরা অনেকেই আছি যারা দাঁত পরিষ্কার রাখার জন্য বাজার থেকে মাউথওয়্যাস কিনে থাকি,যা অ্যালকোহলযুক্ত,তাই আপনি চাইবেন অ্যালকোহলমুক্ত মাউথওয়্যাস কিন্তে।

কারন বাজারের বেশীর ভাগই মাউথওয়্যাস অ্যালকোহলযুক্ত যা আমাদের মুখে থাকা সাধারন টিস্যুকে ড্যামেজ করতে পারে এবং এগুলো আমাদের ওরাল-ক্যান্সারের ঝুঁকি বাঁড়ায় তাই এগুলো খেয়াল করবেন।

৭। পেয়ারা আমাদের দাঁতের জন্য ভীষন ভাবে উপকার করে,পেয়ারা খেলে দাঁতের মাড়ী পোক্ত হয় এবং পরিষ্কার রাখে।

তাই পেয়ারা সিজনে প্রচুর পেয়ারা খাবেন।
এবং এর পাতাও ভীষন কাজের তাই আপনি মাঝে মাঝে চাইলে পেয়ারা গাছের পাতা দিয়েও ব্রাশ এর মত করে দাঁতে ঘসে নিতে পারেন এতে ব্যাকটেরিয়া ও দাঁতের দূর্গন্ধ দূর হয়


দাঁত পরিষ্কার রাখতে যে কাজ গুলো থেকে বিরত থাকবেনঃ

১। অতিরিক্ত জোড়ে ঘষে ব্রাশ করবেন না,কারন অতিরিক্ত দাঁত ব্রাশ করা বা জোড়ে ব্রাশ করা একে বারেই উচিৎ নয়।

কারন এতে দাঁতের উপরে থাকে এনামেলের অনেক ক্ষতি হয়।

আর জন্য দাঁতের ফাঁকে হলদেটে ভাব আবার চলে আসে।

২। চা ,কফি, বা পান দাঁতের উপর দাগ ফেলে এমন খাবার গুলি থেকে বিরত থাকুন।

কারন চা কফি ও অন্যান্য অ্যাসিড জাতীয় খাবার গুলি দাঁতে দাগ ফেলানোর জন্য দায়ি।

তাছাড়া গাঢ় রঙ জাতীয় খাবার গুলি বিশেষ ভাবে এড়িয়ে চলুন।

৩। চকলেট বা লজেন্স,এবং কার্বনেট বেভারেজ জাতীয় খাবার গুলি এড়িয়ে চলুন।

এগুলোতে অতি মাত্রায় চিনির পরিমান থাকে বলে এটি দাঁতের মাড়ীকে ভীষন ক্ষতি করে, দাঁতের ক্ষয় বাড়ায়।
দাঁতের মাড়ী ফুলে যায়।

তাই চকলেট খাওয়া থেকে দূরে থাকুন ,এতে ক্যাভিটি আক্রমন থেকে দাঁত কে সুরক্ষিত রাখে।
আর চকলেট খাবার পর পরই ভালো ভাবে দাঁত কে মুখ কুল্কুচি করে পরিষ্কার করবেন।

তাছাড়া অতিরিক্ত গরম পানি যেমন দাঁতের জন্য ক্ষতিকর তেমনি অতিরিক্ত ঠান্ডাও দাঁতের জন্য ক্ষতি।

কারন এতে দাঁতের শীরশিরানি সমস্যা যাদের আছে তারা মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারেন তাই বাজারে বিভিন্ন সেনসোডাইন টুথপেষ্ট থাকে সেগুলো ব্যবহার করতে পারেন। এবং সুপারী,তামাক জাতীয় খাবার যে গুলো দাঁতের ক্ষয়ের কারন সে গুলো পরিহার করুন।


এবং প্রতি মাসে অন্তত একবার করে ডেন্টিষ্টের কাছে নিয়মিত চেকাপ করুন।

এবং নিয়মিত দাঁতের হলদে ভাব সহ পাথরের মত বা কালো ছোপ পড়লে পরিষ্কার করে নিন।
আশা করি আজকের নিবন্ধন টি আপনার জন্য অনেক হেল্পফুল।

তাই ভালো লাগলে বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে দিন।যাতে আপনার থেকে তারাও উপকৃত হতে পারে।

Related Posts

Leave a Comment